Home / জাতীয় / বিএনপি নেতাদের বিরোদ্দে মিথ্যা অভিযোগ।

বিএনপি নেতাদের বিরোদ্দে মিথ্যা অভিযোগ।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন
বিএনপিকে বাইরে রাখতেই সিনিয়র নেতাদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার
— ড. খন্দকার মোশাররফ

সরকার ই‌চ্ছাকৃতভাবে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খা‌লেদা জিয়ার মু‌ক্তি বিলম্বিত করছে এবং বিএন‌পি‌কে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন থে‌কে বাই‌রে রাখ‌তে বিএনপির সিনিয়র নেতাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চা‌লি‌য়ে জনগণ‌কে বিভ্রান্ত কর‌ছে ব‌লে অ‌ভি‌যোগ ক‌রে‌ছেন দলের স্থায়ী কমিটির সিনিয়র সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।
সোমবার, এপ্রিল ৩, দুপুর সোয়া ১২টার দি‌কে নয়াপল্ট‌নে দ‌লের কেন্দ্রীয় কার্যাল‌য়ে আ‌য়ো‌জিত সংবাদ স‌ম্মেল‌নে এসব কথা ব‌লেন তিনি।

খন্দকার মোশাররফ হোসেন ব‌লেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনে বাধাদান এবং বিএনপিকে কালিমালিপ্ত করতেই আমাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে যা মিথ্যা বানোয়াট, ভি‌ত্তিহীন ও রাজ‌নৈ‌তিক উ‌দ্দেশ্য প্র‌ণো‌দিত। এটা অপপ্রচার। এর সা‌থে আমা‌দের কো‌নো সম্পর্ক নাই। এমন‌কি আমা‌কে নি‌য়ে ডাচ বাংলা ব্যাং‌কের যে হিসাবের কথা প্রথ‌মে একটি আওয়ামী প্রোপাগাণ্ডা ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছিল এবং পরে দুদক সেটার ভিত্তিতে যে অ‌ভি‌যোগ আম‌লে নি‌য়ে‌ছে তাও ভি‌ত্তিহীন। কারণ, আ‌মি এমন‌কি আমার প‌রিবা‌রের কোনো সদস্যের ডাচ বাংলা ব্যাং‌কে কো‌নো একাউন্ট অতী‌তেও ছিল না, এখনও নাই। তাই সরকার ও দুদক‌কে আমার ডাচ বাংলা ব্যাং‌কের কো‌ন ব্রা‌ঞ্চে আমার হিসাব খোলা হ‌য়ে‌ছে, কতটাকা গ‌চ্ছিত র‌য়ে‌ছে, তা জানা‌নোর দা‌বি জানা‌চ্ছি।’

‌বিএন‌পির এই শীর্ষ নেতা ব‌লেন, ‘আওয়ামী প্রোপাগাণ্ডা ওয়েবসাইটি কারা চালায় আমরা জানতে চাই। এরা কী গো‌য়েন্দা সংস্থার কো‌নও প্র‌তিষ্ঠান, না‌কি সরকা‌রের, তা পরিষ্কার ব্যাখা দেয়া দরকার। কেননা ক‌থিত অনলাইন নিউজপোর্টাল যে রি‌পোর্ট বেশ‌কিছু দিন পূ‌র্বে প্রকাশ ক‌রে‌ছে, গতকাল সেই রি‌পোর্ট আম‌লে নি‌য়ে দুদকও প্রাথ‌মিকভা‌বে যে হ্যান্ড‌নোট দি‌য়ে‌ছে, তা কখনও এক‌টি দে‌শের সাং‌বিধা‌নিক প্র‌তিষ্ঠান দি‌তে পা‌রে না।’
নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘সারা জীবনই ৭ কোটি টাকা লেনদেন করেছি কিনা মনে হয় না। আসলে এটা নোংরা রসিকতা। দুদক মিথ্যা বানোয়াট অভিযোগ করেছে। তারা স্বাধীন বলে দাবি করে, কিন্তু আসলে কি স্বাধীন? আমাদের বিরুদ্ধে লিখতে পারেন, মিথ্যা মামলা দিতে পারেন কিন্তু আমাদেরকে নীতিভ্রষ্ট করা যাবে না এবং ঐক্য বিনষ্ট করা যাবে না।’

তিনি বলেন, ‘আমরা দীর্ঘদিন রাজনীতি করে বর্তমান পর্যায়ে এসেছি। যারা বা যে সকল ব্য‌ক্তি প্র‌তিষ্ঠান এ ধর‌নের ভি‌ত্তিহীন রি‌পোর্ট দি‌য়ে নোংরা খেলায় মে‌তে উ‌ঠে‌ছেন তা‌দের ক্ষমা চাই‌তে হ‌বে। অন্যথায় আমরা মানহা‌নির অ‌ভিযোগে তা‌দের বিরু‌দ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নে‌বো।’

‌বিএন‌পির ভাইস-চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু বলেন, অভিযোগ বানোয়াট। গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্টের ভিত্তিতে অভিযোগ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। গোয়েন্দা সংস্থার উচিত মানুষকে সত্যটা জানানো। কারও বিশেষ কাজে ব্যবহৃত না হওয়া। আর দুদককে বলবো জনগণের টাকায় আপনাদের প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। জনগণকে হয়রানি করবেন না। বরং সুষ্ঠু তদন্ত করুন। নইলে এই দেশ ধ্বংস করার জন্য আপনারা দায়ী থাকবেন। আমা‌দের মিথ্যা মামলায় জে‌লে নি‌লেও বিএন‌পির নেতাকর্মীরা জনগণ‌কে সা‌থে নি‌য়ে ঐক্যগঠন ক‌রে সরকা‌রের পতন ঘটা‌বে এবং জনগ‌ণের সরকার প্র‌তিষ্ঠা ক‌রে ব‌ন্দি গণতন্ত্র‌কে মুক্ত করে‌বে’, বলেন মিন্টু।

ভুঁইফোড় অনলাইন নিউজ পোর্টালের মিথ্যা ও বানোয়াট রিপোর্টের ভিত্তিতে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক বিএনপির সিনিয়র নেতাদের বিরুদ্ধে অনুসন্ধান করছে বলে অভিযোগ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আ‌মির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘এসব অভিযোগ একদলীয় শাসন কায়েমের অংশ। আসলে সরকার আর্থিক খাত ধ্বংস করে টাকা লুট করেছে। ২৫টি অনলাইন পোর্টাল খুলেছে আওয়ামী লীগ একদলীয় প্রচারণার জন্য। বি‌রোধী রাজনী‌তির মতামত‌কে ধ্বংস কর‌তে। কারণ ই‌তোমধ্যে তারা রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করছে শুধু ক্ষমতা দখলের জন্য।’

দল‌টির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনকে বাধাগ্রস্ত করতেই দুদককে কাজে লাগানো হচ্ছে। হঠাৎ করে বিএনপির সিনিয়র নেতা ও তাদের পরিবারের বিরুদ্ধে অবৈধ টাকা লেনদেনের অভিযোগ উদ্দেশ্য প্রণোদিত, যা মিথ্যা এবং বানোয়াট।’

‌তি‌নি ব‌লেন, ‘আসলে সরকার দুদককে দিয়ে নতুন প্রকল্প খুলেছে। তারা আবারো একটি ভোটারবিহীন নির্বাচন করতে চায়। কিন্তু সেটা তারা করতে পারবে না।’

দলটির যেসব নেতার বিরুদ্ধে অনুসন্ধান শুরু হয়েছে তারা হলেন- ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, নজরুল ইসলামখান, আব

Check Also

নির্বাচনে সেনা থাকবে আওয়ামীলীগের সমস্যা কি?? আমীর খসরী

নির্বাচনে সেনা থাকলে আ. লীগের সমস্যা কী — আমীর খসরু ————————————বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: